পাটের ফলন বাড়াতে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার করার পরামর্শ

Life24 Desk   -  

এই মরশুমে পাটের সর্বোচ্চ ফলন পেতে উন্নত প্রযুক্তি প্রয়োগের পরামর্শ দিচ্ছে কৃষি দফতর। আর চাষের খরচ কমাতে পাট নিড়ানি যন্ত্র, ক্রাইজাফ, নেল উইডার ব্যবহার করার পরামর্শ দিচ্ছেন কৃষি বিজ্ঞানীরা। নদিয়া জেলার এক কৃষি বিশেষজ্ঞের মতে, পাটের বীজ যদি এক সারিতে বোনা হয় তবে এই যন্ত্র ব্যবহার করা সহজ হবে। আর যদি ছড়িয়ে-ছিটিয়েও বোনা হয়, এই নিড়ানি দিয়ে আগাছা পরিষ্কার করলে সারি তৈরি হয়ে যাবে। মাটি সরস থাকবে। একটা সেচ বেঁচে যাবে আর সঙ্গে মজুর খরচও। জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা মিশন প্রকল্পে বিনামূল্যে চাষিদের বীজ, যন্ত্র ইত্যাদি দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। এ-ব্যাপারে চাষিদের স্থানীয় সহ-কৃষি অধিকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। জে আর ও ২০৪ সুরেন প্রজাতির পাটের ফলন বেশি। জে সি আইয়ের পাটবীজ পাওয়া যাবে ৪০ টাকা কেজিতে।

এ-বছর বীজের যোগান যথেষ্টই থাকবে, সে-ব্যাপারে কৃষকদের ইতিমধ্যেই সচেতন করা শুরু হয়েছে। কৃষি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফাল্গুন মাস থেকে চৈত্রের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত পাট চাষের জমি তৈরি করতে হবে। কালবৈশাখী ঝড়ের প্রথম বৃষ্টির সঙ্গে সঙ্গে লম্বালম্বি ও আড়াআড়িভাবে চার থেকে পাঁচবার ভালো করে চষে জমি আগাছামুক্ত করতে হবে। তারপর মাটি ঝুরঝুরে করে মই দিয়ে জমি ভালো করে সমান করে নিতে হবে। বীজ বপনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল উপযুক্ত জাত নির্বাচন। কৃষি দফতর জানিয়েছে, বীজ বোনার আগে প্রতি কেজি বীজের সঙ্গে কার্বেন্ডাজিম ৫০ শতাংশ দুই গ্রাম হারে মিশিয়ে বীজশোধন করে নিতে হবে। অথবা প্রতি কেজি বীজের সঙ্গে দুই গ্রাম ট্রাইকোডার্মা ভিরিডি মিশিয়ে বীজশোধন করতে হবে। মিঠা পাটের ক্ষেত্রে ছিটিয়ে বোনার জন্য ছয় থেকে সাত কেজি বীজ প্রতি হেক্টরের জন্য প্রয়োজন। তাছাড়া বীজ বপন যন্ত্রের মাধ্যমে হেক্টর প্রতি মিঠা পাট বীজ তিন থেকে চার কেজি এবং তিতা পাট চার থেকে পাঁচ কেজি প্রয়োজন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ভালো ফলন এবং উন্নত মানের আঁশ পেতে হলে বীজ বপন যন্ত্রের সাহায্যে সারি করে বীজ বোনা উচিত। কারণ, সারিতে বীজ বুনলে ৪০-৫০ শতাংশ বীজ কম লাগে, আর পরিচর্যা করতেও সুবিধা হয়। জল কম লাগে এবং লাভ অনেকটাই বেশি হয়। পাট চাষে জমি তৈরির আগে হেক্টর প্রতি ৭ থেকে ১০ টন জৈব সার প্রয়োগ করলে মাটির উর্বরতা বাড়ে। সুষম সার প্রয়োগের ক্ষেত্রে সবার আগে মাটি পরীক্ষা করা উচিত। তবে মাটি পরীক্ষার ব্যবস্থা না থাকলে জমি তৈরির সময় তিন সপ্তাহ পর এবং চার থেকে পাঁচ সপ্তাহ পর চাপান সার পরিমাণমতো দিতে হবে।

শেষে চাপান সার হিসাবে ইউরিয়া মাটিতে প্রয়োগ না করে পাতায় স্প্রে করলে আরও ভালো ফলন পাওয়া যাবে। সাধারণভাবে সার প্রয়োগের ক্ষেত্রে ডিএপি সারের উপর নির্ভরতা কমিয়ে ইউরিয়া দিয়ে নাইট্রোজেন, সিঙ্গল সুপার ফসফেট ব্যবহার করলে গাছের অতি প্রয়োজনীয় খাদ্য সালফার বা গন্ধক সরবরাহ করা সম্ভব হবে। সেইজন্য জমিতে শেষ চাষের সময় হেক্টর প্রতি ১০ কেজি বোরাক্স ভালোভাবে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিতে হবে। সবচেয়ে বড় কথা, ভালো চাষের জন্য উন্নত প্রযুক্তি প্রয়োগ খুবই জরুরি।

Spread the love

আপনার প্রিয় ওয়েব ম্যাগাজিন ‘Life24’-এ আপনিও লিখতে পারেন এই ম্যাগাজিনের উপযুক্ত যে কোনও লেখা। লেখার সঙ্গে পাঠাবেন উপযুক্ত ২-৩টি ফটো। লেখা পাঠাবেন ইউনিকোডে টাইপ করে। ইউনিকোড ছাড়া কোনও লেখাই গ্রহণ করা হবে না। লেখা ও ফটো পাঠাবেন editor.life24@gmail.com আইডি-তে। কোন সেগমেন্টের লেখা পাঠাচ্ছেন, তা মেলের সাবজেক্টে অবশ্যই লিখে দেবেন। আর অবশ্যই মেলে আপনার নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর জানাবেন।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে খুব কম খরচে আপনার পণ্য কিংবা সংস্থার বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন। বিস্তারিত জানার জন্য মেল করুন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে ৩১ মার্চ পর্যন্ত আপনি একেবারেই বিনামূল্যে দিতে পারবেন শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন। এই বিভাগের যে কোনও সেগমেন্টের জন্য ৫০ শব্দের মধ্যে ইউনিকোডে লিখে মেল করে দিন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।  মেলের সাবজেক্টে লিখে দেবেন 'শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন'।

# 'Life24' ওয়েব ম্যাগাজিন বা এই ওয়েব ম্যাগাজিনের লেখা সম্পর্কে আপনার মতামত লিখে জানান নিচের কমেন্ট বক্স-এ। আর হ্যাঁ, ম্যাগাজিনটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন আপনার পরিচিতদের।