রাগকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করুন

Life24 Desk   -  

রাগলে পৃথিবী ওলটপালট করে দিতে পারার ক্ষমতা অনেকেই রাখেন। তবে যিনি রাগেন, ক্ষতিটা তারই হয়। রেগে গেলে মাথা ঠান্ডা রাখার উপদেশ সবাই দিয়ে থাকেন। কিন্তু সব পরিস্থিতিতে মাথা ঠিক রাখা যায় না। অনেকেই আছেন, যারা চট করে রেগে যান, তখন হিতাহিতজ্ঞান শূন্য হয়ে পড়েন। অন্যকে আঘাত দিয়ে কথা বলতেও মানুষ এই সময় ছাড়ে না। কিন্তু পরে রাগ কমে গেলে বুঝতে পারে, তিনি ঠিক কি অন্যায় করেছেন।

কম-বেশি রাগ সব মানুষের মধ্যেই থাকে। কিন্তু সেটিকে কন্ট্রোল করে নেওয়ার ক্ষমতাও আপনার মধ্যে রাখা উচিত।

ধরুন আপনি রেগে গেলেন। কিন্তু যখন আপনার রাগ কমে গেল তখন আপনি বুঝতে পারলেন ঠিক কি হয়েছে। রাগ কমে যাওয়ার পর আপনি একটি সাদা খাতায় লিখতে পারেন, কেন আপনি আজ অত রেগে গেলেন। কারণটি লিখুন। তারপর নিজে নিজের সঙ্গে কথা বলে দেখুন আপনার কি অত রেগে যাওয়া ঠিক হয়েছে। এই কাজটি যদি আপনি করে যেতে পারেন, তাহলে রাগ থেকে কিছুটা হলেও আপনি মুক্ত হতে পারেন।

এছাড়াও রেগে গেলে আপনি কানে হেডফোন গুঁজে গান শুনতে শুরু করুন। তারপর চোখ বুজে ডুবে যান সেই গানে। আর কোনও ভাবনা মাথায় আসতেই দেবেন না। নিজেকে কাজের মধ্যেও ডুবিয়ে রাখতে পারেন।

মাথা গরম হলে যেখান আছেন, সেখান থেকে বেরিয়ে চলে যান। সব সময় হয়তো তেমন পরিস্থিতি থাকে না কিন্তু এটা করতে পারলে রাগের মাথায় অনেক ভুল কাজ করে ফেলা থেকে নিজেকে বাঁচাতে পারবেন। হাতের কাছে কাগজ থাকলে আঁকিবুকি কাটতে শুরু করুন। মাথা যত ঠান্ডা হতে থাকবে, ততই দেখবেন ওই আঁকিবুকি পালটে যাচ্ছে সুন্দর ছবিতে। কেউ কোনও খারাপ কথা বলায় যদি রাগ হয় তবে চিত্কার না করে ঠান্ডা মাথায় তাকে কঠিন কথা বলুন। মিষ্টি করেই কিন্তু সবচেয়ে সাংঘাতিক কথা বলা যায়।

 হাতের কাছে চকোলেট অথবা আপনার খুব প্রিয় কোনও খাবার রাখুন। মাথা গরম হয়ে গেলেই মুখে পুরে দিন। এগুলি হল মুড বুস্টার। যতই এর স্বাদ নেবেন, ততই আপনার মুড ভালো হতে থাকবে এবং রাগ কমবে। ফোনে গেম খেলতে শুরু করুন। রাগ কমাতে এটিও ভালো কাজে দেয়।

খুব বেশি স্ট্রেসড লাগলে নির্জন কোণ বেছে নিন এবং তারপর রাগের কারণটি নিয়ে নিবিড়ভাবে ভাবতে থাকুন। আপনি কতটা খারাপ আছেন, আপনার উপর কত অন্যায়-অবিচার হচ্ছে এসব নিয়ে ভেবেই চলুন। ভাবতে ভাবতে একটা সময় হয় আপনি অত্যন্ত ভেঙে পড়বেন। নিজের উপর নিজেরই মমতা হবে। নিজে চুপচাপ থাকার চেষ্টা করুন। আস্তে আস্তে দেখবেন যেকারণে রাগ হয়েছিল সেটা কম হতে থাকবে।

 

যদি রাগ হওয়ার সময়ে বাড়িতে থাকেন, তবে দরজা বন্ধ করে সাজগোজ করতে পারেন। নিজেকে সবচেয়ে সুন্দর করে যেভাবে খুশি সাজান। মন ভালো হলে তবেই দরজা খুলবেন। হাতের কাছে সব সময় সুগন্ধি রাখবেন। রাগ হলেই স্প্রে করবেন হাতে। সুন্দর অ্যারোমা নার্ভকে রিল্যাক্স করে। মন ভালো হয়ে যায়।

রাগ করার আগে একটু ভাবার চেষ্টা করুন কেন রাগ করছেন। রাগ করে আপনি একজন মানুষকে দুটো কথা বলে দিতেই পারেন। কিন্তু এতে কি কোনও লাভ হচ্ছে? উলটে ক্ষতির শিকার হচ্ছেন আপনি। প্রথমত আপনার নিজের শরীর খারাপ হচ্ছে। রাগের কারণে আপনার নিজের শরীরে নানা ধরনের রোগ জন্ম নিচ্ছে। আর দ্বিতীয়ত যে মানুষটির ওপর রাগ করছেন সেটি যে কারণেই হোক আপনার ব্যবহার তাকে আঘাত করছে। ফলে সেই মানুষটির সঙ্গে চিরতরে সম্পর্ক খারাপ হচ্ছে। তাই এইগুলি একটু মাথায় রাখলে ভালো হয়।

আর এই সমস্ত কিছুর থেকে মুক্তি পেতে, মেডিটেশন করা খুব ভালো। কারণ নিজের মন শান্ত থাকলে অনেক কিছু বিপদ থেকে আপনি নিজেকে রক্ষা করতে পারবেন।

Spread the love

আপনার প্রিয় ওয়েব ম্যাগাজিন ‘Life24’-এ আপনিও লিখতে পারেন এই ম্যাগাজিনের উপযুক্ত যে কোনও লেখা। লেখার সঙ্গে পাঠাবেন উপযুক্ত ২-৩টি ফটো। লেখা পাঠাবেন ইউনিকোডে টাইপ করে। ইউনিকোড ছাড়া কোনও লেখাই গ্রহণ করা হবে না। লেখা ও ফটো পাঠাবেন editor.life24@gmail.com আইডি-তে। কোন সেগমেন্টের লেখা পাঠাচ্ছেন, তা মেলের সাবজেক্টে অবশ্যই লিখে দেবেন। আর অবশ্যই মেলে আপনার নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর জানাবেন।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে খুব কম খরচে আপনার পণ্য কিংবা সংস্থার বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন। বিস্তারিত জানার জন্য মেল করুন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে ৩১ মার্চ পর্যন্ত আপনি একেবারেই বিনামূল্যে দিতে পারবেন শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন। এই বিভাগের যে কোনও সেগমেন্টের জন্য ৫০ শব্দের মধ্যে ইউনিকোডে লিখে মেল করে দিন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।  মেলের সাবজেক্টে লিখে দেবেন 'শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন'।

# 'Life24' ওয়েব ম্যাগাজিন বা এই ওয়েব ম্যাগাজিনের লেখা সম্পর্কে আপনার মতামত লিখে জানান নিচের কমেন্ট বক্স-এ। আর হ্যাঁ, ম্যাগাজিনটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন আপনার পরিচিতদের।