সময় থাকতেই কেরিয়ারের ব্যাপারে সচেতন হওয়া উচিত

Life24 Desk   -  

বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে সকলেই চায় অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হতে। তাই পড়াশোনা করতে করতেই চাকরি খোঁজা বা কী বিষযে নিয়ে পড়াশোনা করলে সুবিধে হবে সেই কথাটি আগে থেকে ভেবে নেওয়া উচিত। এখনকার বেশিরভাগ ছেলে-মেযে স্নাতকোত্তর স্তর পর্যন্ত পড়াশোনা করে। তবে এখন স্নাতক স্তরের পড়াশোনাতে চাকরির বাজার থাকলেও পাশাপাশি টেকনিক্যাল নলেজও রাখতে হবে। তবেই এই যুগের চাকরির বাজার সম্পর্কে বোঝা সম্ভব। কারণ প্রথাগতভাবে শিক্ষা নিযে চাকরিতে খুব বেশিদূর এগোনো সম্ভব নয়। তাই দরকার বিশেষ শিক্ষা। পড়াশোনা করতে করতেই অন্য বিষযে নিজের দক্ষতা বাড়িয়ে নেওয়া যেতে পারে। অনেক জায়গাতেই উচ্চমাধ্যমিক পাস করার পরেই বিভিন্ন কোর্স করানো হয়, যেগুলি খুব সহজেই করে নেওয়া যেতে পারে।

পুঁথিগত বিদ্যার দিক দিয়ে দেখতে গেলে দেখা যায়, স্নাতকস্তরের দুটি ভাগ রয়েছে। একটি হচ্ছে সাধারণ স্নাতক ও দুই, সাম্মানিক স্নাতক। সাধারণ স্নাতকদের প্রথাগত পথে উচ্চশিক্ষার কোনও সুযোগ নেই। তবে তারা বৃত্তিমূলক পড়াশোনা করতে পারে। যেগুলির মধ্যে হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট, হোটেল ম্যানেজমেন্ট,  ইত্যাদি  বিষয়ে পড়াশোনা করা সম্ভব। সেইসঙ্গে সেরে ফেলা যেতে পারে কম্পিউটারের অ্যাডভান্সড কোর্স। পাশাপাশি অন্য পথটি হল গ্রাজুয়েট করে নিজেকে চাকরির জন্য প্রস্তুত করে তোলা। রেলের চাকরি, ক্ল্যারিক্যাল চাকরি, মিসেলেনিযাস সার্ভিসেস চাকরি এই ধরনের চাকরিগুলির জন্য নিজেকে প্রস্তুত করে তোলা। পাশাপাশি ডব্লুবিসিএসের ডি গ্রুপের চাকরির জন্যও প্রস্তুত হতে পারেন।

আবার সাম্মানিক স্নাতকদের ক্ষেত্রে অনার্সে কম করে ৫৫ শতাংশ নম্বর না থাকলে স্নাতকোত্তর স্তরের পড়াশোনা করে বিশেষ লাভ হবে না। অনার্সে যারা ভালো ফল করবে, তারা স্নাতকোত্তর স্তরের পড়াশোনার পরে শিক্ষকতা বা গবেষণার পেশায় নিজেদের নিযুক্ত করতে পারবে। অনার্সের পরে যারা স্নাতকোত্তরের পড়াশোনা করবে না, তাদের চাকরির জন্য নিজেদের প্রস্তুত করে রাখা গুরুত্বপূর্ণ। সিভিল সার্ভিসেস এক্ষেত্রে একটি ভালো সুযোগ। এই পরীক্ষাগুলোতে সফল হওয়া সম্ভব। তবে তার জন্য দরকার কঠোর পরিশ্রম ও জেদ। নিজেকে একটি জায়গায় তুলে ধরার জন্য বা প্রতিষ্ঠিত করার জন্য কঠোর অধ্যাবসায় দরকার। কারণ এই ধরনের পরীক্ষাগুলি বেশ কঠিন। তাই বেশ পরিকল্পনা করে এগোনো ভালো। তবে পরীক্ষাগুলো কঠিন বলে হাল ছেড়ে দেওয়া উচিত নয়। সঠিক সময়ে উপযুক্ত পদক্ষেপ  নিলে কঠিন পরীক্ষায় অনায়াসে সাফল্য লাভ করা যাবে। সিভিল সার্ভিসের পরীক্ষার ক্ষেত্রে ইংরেজিতে ভালো দক্ষতা থাকা প্রয়োজন। সেক্ষেত্রে ভালো অর্থাত্ একজন দক্ষ শিক্ষকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। সেইসঙ্গে অন্যান্য চাকরির ক্ষেত্রেও নিজেকে খুব ভালো করে প্রস্তুত করে নেওয়া প্রয়োজন। পুঁথিগত বিদ্যার পাশাপাশি বর্তমান সময়ে সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে আপডেট করে তোলা খুব জরুরি।

তবে বর্তমানে শিক্ষার প্রকৃত অর্থই হল একটি ভালো চাকরি পাওয়া। তাই আগে থেকে সেই বিষয়ে সাফল্য পাওয়ার জন্য পরিকল্পনামাফিক এগোনো ভালো। অন্য কারও কথায় কেরিয়ার পছন্দ না করে নিজের মেধা, পছন্দ ও প্যাশন অনুযাযী কেরিয়ার বাছা খুবই জরুরি। কারণ সময়ও এইক্ষেত্রে একটি বড় বিষয়। তাই অযথা দিক্ভ্রান্ত না হযে পড়াশোনা করতে করতেই কেরিয়ারের বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করে চাকরির ক্ষেত্রটিকে পছন্দ করা উচিত।

Spread the love

আপনার প্রিয় ওয়েব ম্যাগাজিন ‘Life24’-এ আপনিও লিখতে পারেন এই ম্যাগাজিনের উপযুক্ত যে কোনও লেখা। লেখার সঙ্গে পাঠাবেন উপযুক্ত ২-৩টি ফটো। লেখা পাঠাবেন ইউনিকোডে টাইপ করে। ইউনিকোড ছাড়া কোনও লেখাই গ্রহণ করা হবে না। লেখা ও ফটো পাঠাবেন editor.life24@gmail.com আইডি-তে। কোন সেগমেন্টের লেখা পাঠাচ্ছেন, তা মেলের সাবজেক্টে অবশ্যই লিখে দেবেন। আর অবশ্যই মেলে আপনার নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর জানাবেন।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে খুব কম খরচে আপনার পণ্য কিংবা সংস্থার বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন। বিস্তারিত জানার জন্য মেল করুন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে ৩১ মার্চ পর্যন্ত আপনি একেবারেই বিনামূল্যে দিতে পারবেন শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন। এই বিভাগের যে কোনও সেগমেন্টের জন্য ৫০ শব্দের মধ্যে ইউনিকোডে লিখে মেল করে দিন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।  মেলের সাবজেক্টে লিখে দেবেন 'শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন'।

# 'Life24' ওয়েব ম্যাগাজিন বা এই ওয়েব ম্যাগাজিনের লেখা সম্পর্কে আপনার মতামত লিখে জানান নিচের কমেন্ট বক্স-এ। আর হ্যাঁ, ম্যাগাজিনটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন আপনার পরিচিতদের।