হাল ফ্যাশনে বর্তমান তারুণ্য

Life24 Desk   -  

ফ্যাশন এবং তরুণ- শব্দ দুটি প্রায় সমার্থক। কারণ হাল ফ্যাশনের ঢেউ তরুণদের ঘিরেই চারদিক ছড়িয়ে পড়ে। তাই তরুণদের কথা বিবেচনা করেই বাজারে নিয়ে আসা হচ্ছে আধুনিক সব ফ্যাশন।

সঠিকভাবে হিসাব করলে পাঁচ বছরও হবে না। এই সময়ের ভিতর তরুণরা যে ফ্যাশনে নিজেদের সাজাত, সেই ফ্যাশনের সঙ্গে রয়েছে বর্তমান ফ্যাশনের আকাশ পাতাল তফাৎ। হ্যাঁ, এটা ঠিক যে, তরুণরা সব সময়ই নতুন আসা পোশাকের প্রতি দৃষ্টি দিত এবং নিজের জন্য কিনে আনত। তবে মূল তফাৎটা ছিল রং নির্বাচনে। হালকা রঙের বিশেষ একটা কদর তখন ছিল। কোনো তরুণ খুব গাঢ় রঙের পোশাক পরেছে, এমনটা দেখা যেত না বললেই চলে। জুতো বেল্টের একটা মাত্র রং ছিল- কালো। লাল, হলুদ কিংবা লাল-হলুদের কাছাকাছি রংগুলো নির্দিষ্ট ছিল শুধু মেয়েদের জন্য। ফলে দেখা যেত মার্কেট এবং শপিংমলগুলোতে সীমিত রং ও ফ্যাশনের ড্রেস আমদানি হয়েছে। কোনো তরুণ বা তরুণী কোন রঙের পোশাক কিনবে, তা যেন মার্কেটে যাওয়ার আগেই ঠিক করা থাকত। মার্কেটে গিয়ে অনেক রঙের মধ্য থেকে বেছে পছন্দের পোশাকটি কেনার প্রবণতা তখন এই সময়ের মতো ছিল না। অন্তত তরুণদের মধ্যে। অথচ অল্প কয়েক বছরের ব্যবধানেই এখন বদলে গেছে তরুণদের মনমানসিকতা, বদলে গেছে শপিংমলের চিত্র।

পোশাকে তারুণ্য

নাটক সিনেমায় দেখা যেত জোকাররা নানারকম হাস্যকর পোশাক পরেছে। আর এই হাস্যকর পোশাকের অন্যতম একটি অংশ ছিল লাল বা হলুদ প্যান্ট। বাস্তবে কোনো তরুণ লাল, হলুদ কিংবা সবুজ রঙের প্যান্ট পরবে, এটা যেন কারও কল্পনায়ও ছিল না। এখন সব বাধা পেরিয়ে তরুণরা সত্যিকারের তারুণ্যের ফ্যাশনে সজ্জিত করেছে নিজেদের। এখন কলেজ ভার্সিটির স্মার্ট তরুণদের পরনে অহরহই দেখা যাচ্ছে লাল, হলুদ, সবুজ আর গোলাপি রঙের প্যান্ট। আর এই রংগুলো তাদের মানিয়েছেও চমৎকার। আর এতে অন্যেরাও উৎসাহী হয় একই ফ্যাশনে নিজেকে সুন্দর করে উপস্থাপনের বিষয়ে। এভাবেই তারুণ্যদীপ্ত এই ফ্যাশনের প্রসার ঘটছে। তাদের এই ফ্যাশন শুধু নিজেদের দৃষ্টিনন্দন করার প্রয়াসই নয়, বরং ফ্যাশন সম্পর্কে পুরনো ধ্যান ধারণা পাল্টে দেয়ারও প্রয়াস।

অন্যান্য সরঞ্জামে তারুণ্য

পোশাকের সঙ্গে ম্যাচ করে অন্যান্য সরঞ্জাম ব্যবহারের প্রচলন মেয়েদের মধ্যে সুদূর অতীত থেকেই ছিল। কিন্তু ছেলেদের মধ্যে এটি কখনই সেভাবে ছিল না। কিন্তু তারা যখন গাঢ় রঙিন পোশাক বিশেষ করে রংচঙা প্যান্ট পরে অভ্যস্ত হয়ে গেল, তখনই বোধ হয় তাদের মধ্যেও ম্যাচ করে অন্যান্য পরিধেয় ব্যবহারের ইচ্ছা মাথাচাড়া দিয়ে উঠল। জুতোর কথাই ধরা যাক। তরুণরা যেখানে কালো জুতো বাইরে কিছু চিন্তাই করত না, সেখানে তারা প্যান্টের রঙের সঙ্গে ম্যাচ করে পরতে শুরু করল লাল, হলুদ, লকলেট আর গোলাপি জুতো। এখন এই ম্যাচিং এতটাই জনপ্রিয় হয়ে গেছে, তরুণরা প্যান্ট কেনার সময় তার সঙ্গে রং মিলিয়ে জুতোটাই কিনে নিয়ে আসে। ফ্যাশনের এখানেই শেষ হয়। প্যান্ট পরলে বেল্ট লাগবে। বেল্টটা কেন সেই মান্ধাতার আমলের কালো রঙের থাকবে? বেল্টটাও তো প্যান্ট এবং জুতোর রঙের হতে পারে। হলও তাই। এখন একই রঙের প্যান্ট, বেল্ট আর জুতো পরা একজন তরুণ যখন রাস্তা দিয়ে হেঁটে যায়, তখন অপেক্ষাকৃত বয়স্ক মানুষও তার রুচির প্রশংসা না করে পারেন না। এসব পরিধেয় সরঞ্জাম ছাড়াও তরুণরা এখন চাবির রিং থেকে শুরু করে নিত্যদিনের ব্যবহারের প্রতিটি সরঞ্জাম রঙিন ব্যবহার করতে পছন্দ করে। তরুণীদের মধ্যে মুষ্টিমেয় যেসব তরুণী ‘মার্জিত’ রঙের পোশাক পরার পক্ষে থেকে গাঢ় রঙের পোশাক এড়িয়ে চলত, তারাও এখন গাঢ় রঙের পোশাককেই মার্জিত পোশাক বলে মেনে নিয়েছে। শুধু কলেজ ভার্সিটি নয়, অফিসে কর্মরত অনেক তরুণও এখন অফিস করছে এই তারুণ্যময় পোশাক-আশাক পরে।

Spread the love

আপনার প্রিয় ওয়েব ম্যাগাজিন ‘Life24’-এ আপনিও লিখতে পারেন এই ম্যাগাজিনের উপযুক্ত যে কোনও লেখা। লেখার সঙ্গে পাঠাবেন উপযুক্ত ২-৩টি ফটো। লেখা পাঠাবেন ইউনিকোডে টাইপ করে। ইউনিকোড ছাড়া কোনও লেখাই গ্রহণ করা হবে না। লেখা ও ফটো পাঠাবেন editor.life24@gmail.com আইডি-তে। কোন সেগমেন্টের লেখা পাঠাচ্ছেন, তা মেলের সাবজেক্টে অবশ্যই লিখে দেবেন। আর অবশ্যই মেলে আপনার নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর জানাবেন।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে খুব কম খরচে আপনার পণ্য কিংবা সংস্থার বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন। বিস্তারিত জানার জন্য মেল করুন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে ৩১ মার্চ পর্যন্ত আপনি একেবারেই বিনামূল্যে দিতে পারবেন শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন। এই বিভাগের যে কোনও সেগমেন্টের জন্য ৫০ শব্দের মধ্যে ইউনিকোডে লিখে মেল করে দিন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।  মেলের সাবজেক্টে লিখে দেবেন 'শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন'।

# 'Life24' ওয়েব ম্যাগাজিন বা এই ওয়েব ম্যাগাজিনের লেখা সম্পর্কে আপনার মতামত লিখে জানান নিচের কমেন্ট বক্স-এ। আর হ্যাঁ, ম্যাগাজিনটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন আপনার পরিচিতদের।