জঙ্গি আর মাসুদ, মোদী-রাহুল বাকযুদ্ধে সাধারণ মানুষ কোথায়?

Life24 Desk   -  

রাফালে, বিজয় মালিয়া, নীরব মোদীর পর এবার জঙ্গি নিয়ে রাজনীতি তুঙ্গে। একজন বলেন আমরাই জঙ্গি দমনের সাহস দেখিয়েছি। অন্যজন বলেন, কোথায়? জঙ্গিদের তো ওরা ভয় পায়। কান্দাহারের সময় মাসুদকে ছেড়ে এসেছিল ওরাই। লোকসভা ভোটের আগে কংগ্রেস-বিজেপি তরজায় বাকযুদ্ধ এখন চরমে পৌঁছেছে। পাক ভূখণ্ডের বালাকোটে ভারতীয় বায়ুসেনার অভিযান নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। সে জন্য বিরোধীদের পাকিস্তানি পোস্টার বয় বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এবার মাসুদ আজহারকে নিয়ে সেই মোদীকেই পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধী।

রাহুল বলেন, ‘‘সাহস থাকলে দেশবাসীর সামনে মুখ খুলুন মোদী। ভারতের হাতে থাকা মাসুদ আজহারকে বিজেপি সরকারই যে ছেড়ে দিয়েছিল, সে কথা সকলের সামনে বলে দেখান!’’ এ দিন কর্নাটকের হাভেরিতেএকটি জনসভায় ভাষণ দিচ্ছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধী। সেখানে দাঁড়িয়ে জইশ-ই-মহম্মদ চাঁই মৌলানা মাসু আজহারকে টেনে আনেন তিনি। রাহুল বলেন, ‘‘মোদীজি শুধু আমাকে একটা কথা বুঝিয়ে বলুন। ভারতের জেল থেকে মাসুদ আজহারকে পাকিস্তানে পাঠিয়েছিল কারা?’’

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সিআরপি কনভয়ে হামলা চালায় জইশ। তাতে প্রাণ হারান ৪০ জওয়ান। এর পর থেকে উপত্যকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন বিরোধীরা। কাশ্মীর নিয়ে সরকারের অবস্থানের সমালোচনা করছেন। অন্য দিকে বিরোধীদের পাকদরদী বলে পাল্টা আক্রমণ করেছে সরকার।

এই প্রেক্ষিতে সরাসরি নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করেন রাহুল। তিনি বলেন,  “মোদীজির জন্য ছোট্ট প্রশ্ন। কাশ্মীরে সিআরপি জওয়ানদের হত্যার জন্য কে দায়ী? জইশ-ই-মহম্মদ নেতার নাম কী, মাসুদ আজহার। ১৯৯৯ সালে তত্কালীন বিজেপি সরকার যাকে ভারতের জেল থেকে বার করে আফগানিস্তানের কন্দহর হয়ে পাকিস্তানে পাঠিয়ে দিয়েছিল।’’

রাহুলের অভিযোগ, জঙ্গি হামলা নিয়ে বিরোধীদের তুলোধনা করলেও, মাসুদ আজহারকে নিয়ে এখনও পর্যন্ত একটা কথাও বলেননি নরেন্দ্র মোদী। তাই প্রধানমন্ত্রীর দিকে প্রশ্ন ছুড়ে দেন তিনি, “মাসুদকে নিয়ে কথা বলছেন না কেন?  মানুষকে কেন জানতে দিচ্ছেন না যে, পুলওয়ামায় জওয়ানদের হত্যাকারী ওই ব্যক্তিকে বিজেপি সরকারই পাকিস্তানের হাতে ছেড়ে দিয়েছিল? মোদীজি, আমরা আপনার মতো নই। সন্ত্রাসের সামনে মাথা নত করার অভ্যাস নেই আমাদের। তাই মাসুদকে কারা ছেড়ে দিয়েছিল, সাধারণ মানুষের সামনে তা বলে দেখান।’’

১৯৯৯ সালে অটলবিহারি বাজপেয়ীর আমলে কন্দহার বিমান ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। যাত্রীদের পণবন্দি করা হয়। মাসুদ আজহারের বিনিময়ে ওই যাত্রীদের ফিরিয়ে আনা হয় ভারতে।

Spread the love