প্রেমিক মারাদোনা

Life24 Desk   -  

ফুটবলারদের প্রেম কাহিনি নিয়ে নানা সময় নানা রকম খবর ছড়িয়েছে। প্রেমের ক্ষেত্রে ফুটবলাররা যেন সিদ্ধহস্ত। একবার নয় বারবার নানান জনের সঙ্গে সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছেন তাঁরা। বউ থাকলেও অন্য মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করা। শারীরিকভাবে জড়িয়ে পড়া তাঁদের কাছে জলভাত। তালিকা তৈরি করলে সেই তালিকায় অনেক ক্রীড়াবিদেরই নাম উঠে আসবে। তবে সব থেকে আলোচিত নামটা বোধহয় আর্জেন্টিনার প্রাক্তন ফুটবলার দিয়েগো মারাদোনার। আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়েগো মারাদোনা শুধু ফুটবল বিশ্বেই নয়, প্রেমের জগতেও তিনি সুপারস্টার! একটা সময় তাঁর জাদুকরী ফুটবলশৈলী উপহার দিয়ে তিনি যেমন গোটা দুনিয়া মাত করে রাখতেন, তেমনি প্রেমের ময়দানেও কম খেল দেখাননি। ঘরে স্ত্রী থাকতেও বান্ধবী নিয়ে ঘুরে বেড়াতেন দ্বিধাহীনভাবেই। আর্জেন্টিনা কিংবদন্তির প্রেম-উপাখ্যান জানতে হলে ফিরে যেতে হবে অনেক পেছনে।

সময়টা আশির দশক। মারাদোনা ফুটবল বিশ্বে তারকা খ্যাতি পাওয়ার আগে থেকেই ক্লদিয়ার সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক তৈরি হয়। দীর্ঘদিন প্রেম করার পর বিয়ের পিঁড়িতে বসেন ৭ নভেম্বর ১৯৮৪ সালে। যদিও বিয়েতে খুব একটা বিশ্বাসী ছিলেন না মারাদোনা। তারপরও দীর্ঘদিনের বান্ধবীর আবদার মেটাতে গিয়েই গাঁটছড়া বাঁধেন। কিছুদিনের মধ্যে মারাদোনা ও ক্লদিয়ার ঘরে আসে দুই মেয়ে— দালমা ও জিয়ান্নিনা।

ধীরে ধীরে স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটতে থাকে মারাদোনার। কিন্তু দুই মেয়ের কথা ভেবেই তাঁরা সম্পর্কটা টিকিয়ে রেখেছিলেন বছরের পর বছর। তবে ২০০৪ সালে ক্লদিয়া ও মারাদোনার সম্পর্ক পাকাপাকিভাবে ভেঙে যায়। তবে স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হলেও দুই মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল মারাদোনার। এরপর ইতালিয়ান এক তরুণীর প্রেমে পড়েন মারাদোনা।  নেপোলিতে খেলার সময় অনেক রাত এক ছাদের নীচেই কাটিয়েছেন ওই ইতালিয়ান বান্ধবীর সঙ্গে। সে সম্পর্কও শেষ পর্যন্ত ভেঙে যায়। তবে ইতালিয়ান তরুণীর দিয়েগো সিনাগ্রা নামে একটি সন্তান ছিল। সেটি মারাদোনার সন্তান বলে অনেক দিন পর দাবি করেছিলেন। যদিও মারাদোনা প্রথমে স্বীকার করেননি। তবে আদালতের রায়ের পর মেনে নিতে বাধ্য হন। ১৯৯৩ সালে আদালত ঘোষণা করে, সিনাগ্রা মারাদোনারই সন্তান। ক্লদিয়ার সঙ্গে বিচ্ছেদের পর মারাদোনার জীবনে অনেক নারী এসেছে। কখনও শোনা গেছে, আর্জেন্টাইন মডেল মারিয়া বেলেন ফ্রান্সিসের প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন ছিয়াশির মহানায়ক। আবার কখনও সিলভিনা লুনা ও ওয়ান্দা নারার নামও শোনা গেছে। সেই কাহিনিই সংবাদমাধ্যমের সামনে প্রকাশ করেছেন মির্থা। নারা ও ম্যারাডোনার সম্পর্কের কথা বলতে গিয়ে এক রাতের অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন তিনি। মার দেল প্লাটার একটি হোটেলে উঠেছিলেন মির্থা। সেই হোটেলেরই অন্য একটি রুম বুক করেছিলেন ম্যারাডোনা ও নারা৷ রাতে ম্যারাডোনা ও নারা উদ্দাম যৌনতায় মেতে ওঠেন। পাশের ঘরে বিকট শব্দ তো হতোই। তার সঙ্গে আসবাবপত্র সরানোর শব্দও শুনতে পেয়েছিলেন মির্থা। তারপর কেটে গেছে বেশ কয়েকটা দিন।

তারপর মারাদোনার জীবনে আসেন ভেরোনিকার। ২০১০ সালে মারাদোনা বুঝিয়ে দেন ভেরোনিকার সঙ্গে তাঁর প্রেম বেশ জমে উঠেছে। এত ঘটা করে সম্পর্ক স্বীকার করার পরও সেই সম্পর্ক টেকে নিই। ভেরোনিকার সঙ্গে সম্পর্ক শেষ হতে না হতেই আর্জেন্টাইন কিংবদন্তির হৃদয়ে জায়গা করে নেন রোসিও অলিভা। এই অলিভাই ছিলেন দুবাইয়ে মারাদোনার ছায়াসঙ্গী। কোচিংয়ের বাইরে পুরো সময় তিনি অলিভাকে নিয়েই মেতে থাকতেন। হঠাৎ একদিন দুবাইয়ের বাড়ি থেকে তার কিছু মূল্যবান জিনিস চুরি করে পালিয়ে যান ২৪ বছর বয়সি মারাদোনার এই প্রেমিকা! তারপরও থেমে থাকেননি মারাদোনা। ইভা আমোদেও নামে সাংবাদিকতা বিভাগের এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে ডেটিং করেন মারাদোনা। আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েনস আয়ার্সে তাঁদের গভীর রাতে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় সেই সময় তাঁদের বহুবার দেখা গিয়েছে। বহু নারীর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক তাঁকে বার বার সংবাদ শিরোনামে জায়গা করে দিয়েছে। ফুটবলে জাদু দেখানোর পাশাপাশি তিনি যে বহু নারীর সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করতে পটু সেটা সকলকে খুব ভালো করেই বুঝিয়েছে। ধন্য বটে মারাদোনা!

Spread the love

আপনার প্রিয় ওয়েব ম্যাগাজিন ‘Life24’-এ আপনিও লিখতে পারেন এই ম্যাগাজিনের উপযুক্ত যে কোনও লেখা। লেখার সঙ্গে পাঠাবেন উপযুক্ত ২-৩টি ফটো। লেখা পাঠাবেন ইউনিকোডে টাইপ করে। ইউনিকোড ছাড়া কোনও লেখাই গ্রহণ করা হবে না। লেখা ও ফটো পাঠাবেন editor.life24@gmail.com আইডি-তে। কোন সেগমেন্টের লেখা পাঠাচ্ছেন, তা মেলের সাবজেক্টে অবশ্যই লিখে দেবেন। আর অবশ্যই মেলে আপনার নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর জানাবেন।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে খুব কম খরচে আপনার পণ্য কিংবা সংস্থার বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন। বিস্তারিত জানার জন্য মেল করুন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে ৩১ মার্চ পর্যন্ত আপনি একেবারেই বিনামূল্যে দিতে পারবেন শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন। এই বিভাগের যে কোনও সেগমেন্টের জন্য ৫০ শব্দের মধ্যে ইউনিকোডে লিখে মেল করে দিন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।  মেলের সাবজেক্টে লিখে দেবেন 'শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন'।

# 'Life24' ওয়েব ম্যাগাজিন বা এই ওয়েব ম্যাগাজিনের লেখা সম্পর্কে আপনার মতামত লিখে জানান নিচের কমেন্ট বক্স-এ। আর হ্যাঁ, ম্যাগাজিনটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন আপনার পরিচিতদের।