গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে জেলার বাজার

Life24 Desk   -  

আগামী ১৪ থেকে ২১ মার্চ সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর রাজধানী আবুধাবিতে ‘স্পেশ্যাল অলিম্পিক ওয়ার্ল্ড সামার গেমস’-এর আসর বসছে। বিভিন্ন দেশের কয়েক হাজার ছেলেমেয়ে তাতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। ভারতবর্ষের প্রতিনিধিত্ব করছেন প্রায় আড়াইশো জন। এ রাজ্যের ১২ জন। হাওড়া-হুগলির সাত জনের পাশাপাশি উত্তর ২৪ পরগনা ও কলকাতার একজন করে রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সকলে প্রশিক্ষক মৌসুমি রায়ের সঙ্গে ট্রেনে দিল্লি রওনা হন। শুক্রবার রাজধানীতে পৌঁছেছেন। ৮ তারিখ পর্যন্ত সেখানে প্রশিক্ষণ শিবির চলবে। পরের দিন তাদের আবুধাবিতে পৌঁছনোর কথা। সেখানে কয়েক দিন অনুশীলন হবে। তার পরেই শুরু অলিম্পিকের লড়াই।

বিশেষ মানসিক চাহিদাসম্পন্নদের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে যোগ দিতে যাচ্ছেন হুগলির সাত তরুণ-তরুণী। তাদের সঙ্গে হাওড়ার একটি হোমের আবাসিক তিন যুবতীও প্রতিনিধিত্ব করছেন। হুগলির ছেলেমেয়েদের মধ্যে হাসি দুলে,রীতি সাউ,বিশ্বজিৎ মালিক,কৌশিক বাগ,সৌম্যদীপ গুহরায় পাঁচ জনই শ্রীরামপুর-উত্তরপাড়া ব্লকের কানাইপুরে ‘বাঁশাই প্রচেষ্টা’ নামের একটি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। তাদের বয়স ১৬ থেকে ১৮ বছরের মধ্যে। হাসির বাড়ি রিষড়ার বামুনারিতে। বাকি চার জন বাঁশাইয়ের বাসিন্দা। হাসি সাইকেলে, রীতি ভলিবলে এবং বিশ্বজিৎ, কৌশিক ও সৌম্যদীপ ফুটবলে সুযোগ পেয়েছে।

বিদ্যা‌লয়ের প্রধান শিক্ষক তথা ক্রীড়া প্রশিক্ষক সুবীর ঘোষ এবং সভাপতি সন্ধ্যা চট্টোপাধ্যায় জানান, পাঁচ জনই দরিদ্র পরিবারের সন্তান। হাসির বাবা-মা ১০০ দিনের প্রকল্পে কাজ করেন। বিশ্বজিৎ এবং কৌশিকের বাবা ভ্যানচালক,মা গৃহবধূ। সৌম্যদীপের বাবা নেই। মা পরিচারিকার কাজ করেন। রীতির বাবা বিস্কুট কারখানার কর্মী,মা গৃহবধূ। ২০১৭ সালে অষ্ট্রিয়ায় শীতকালীন স্প্যেশাল অলিম্পিকে ফ্লোর ব‌ল,মেয়েদের ফ্লোর হকিতে পদক জয়ী ভারতীয় দলের সদস্য ছিলেন এই বিদ্যালয়ের কয়েক জন শিক্ষার্থী। সুবীরবাবু জানান এখানে পড়াশোনা ছাড়াও শিক্ষার্থীদের হাতের কাজ, খেলাধূলার উপরে জোর দেওয়া হয়। হাসিরা তাঁদের মুখ উজ্জ্বল করেছে। নিজেদের প্রতিবন্ধকতা শুধু নয়, পরিবারের অভাবকেও ওরা হারিয়ে দিচ্ছে। তাঁরা আশা করছেন বিদেশ থেকে ভাল ফল করেই ফিরবে।

জিরাটের ‘আস্থা’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার শিক্ষার্থী বছর আঠেরোর সুলতা শিকদার সাইকেল এবং তুষার মিত্র ফুটবলে প্রতিনিধিত্ব করবেন। সংস্থার সম্পাদক অচিন্ত্য দত্ত জানান, দু’জনেই এ বার মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছেন। তাদের বাবা-মা ছোটখাট কাজ করে সংসার চা‌লান।

লক্ষ্মী খাতুন,অনিতা ওঁরাও এবং গুড়িয়া রানী তিন জনেই হাওড়ার আমতা ২ ব্লকের পারবাক্‌সির ‘চিরনবীন’ হোমের আবাসিক। তারা ভ‌লিবল দলের প্রতিনিধি। হোম সূত্রে খবর,কয়েক বছর আগে প্রশাসনিক নির্দেশে তাঁরা এখানে আসেন। এখন তাঁদের ঠিকানা এই হোম। তাঁদের খেলার সঙ্গে যোগ ছিল না। হোমেই ভলিবল শিখেছেন। তিন জ‌নই ২০১৭ সালে গুজরাতে জাতীয় চ্যাম্পিয়ন পশ্চিমবঙ্গ দলের সদস্য ছিলেন।

Spread the love

আপনার প্রিয় ওয়েব ম্যাগাজিন ‘Life24’-এ আপনিও লিখতে পারেন এই ম্যাগাজিনের উপযুক্ত যে কোনও লেখা। লেখার সঙ্গে পাঠাবেন উপযুক্ত ২-৩টি ফটো। লেখা পাঠাবেন ইউনিকোডে টাইপ করে। ইউনিকোড ছাড়া কোনও লেখাই গ্রহণ করা হবে না। লেখা ও ফটো পাঠাবেন editor.life24@gmail.com আইডি-তে। কোন সেগমেন্টের লেখা পাঠাচ্ছেন, তা মেলের সাবজেক্টে অবশ্যই লিখে দেবেন। আর অবশ্যই মেলে আপনার নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর জানাবেন।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে খুব কম খরচে আপনার পণ্য কিংবা সংস্থার বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন। বিস্তারিত জানার জন্য মেল করুন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।

Life24 ওয়েব ম্যাগাজিনে ৩১ মার্চ পর্যন্ত আপনি একেবারেই বিনামূল্যে দিতে পারবেন শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন। এই বিভাগের যে কোনও সেগমেন্টের জন্য ৫০ শব্দের মধ্যে ইউনিকোডে লিখে মেল করে দিন advt.bearsmedia@gmail.com আইডি-তে।  মেলের সাবজেক্টে লিখে দেবেন 'শ্রেণীবদ্ধ বিজ্ঞাপন'।

# 'Life24' ওয়েব ম্যাগাজিন বা এই ওয়েব ম্যাগাজিনের লেখা সম্পর্কে আপনার মতামত লিখে জানান নিচের কমেন্ট বক্স-এ। আর হ্যাঁ, ম্যাগাজিনটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন আপনার পরিচিতদের।