গৃহবধূর রহস্যমৃত্যূতে এলাকায় চাঞ্চল্য, এখনও ধন্ধে পুলিশ

Life24 Desk   -  

গতকাল সকালে কেষ্টপুরে আইটি কর্মীর রহস্যমৃত্যূ হয়। মৃতের নাম খুশবু কুমারী(২৮)। হাত ওড়না দিয়ে বাঁধা মুখে ব্রাউন টেপ লাগানো অবস্থায় ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। ঘটনার তদন্তে নেমেছে বাগুইআটি থানার পুলিশ। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে প্রায় বছর খানেক আগে কেষ্টপুরের প্রফুল্ল কাননে এসি ১৬৬ নম্বর ওই বহুতলে ভাড়া আসে বিটেক ছাত্রী এই গৃহবধূ খুশবু কুমারী। তার স্বামী বিবেক কুমার পেশায় বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসরের কাজ করেন বোকারোতে। তবে এখন তিনি কলকাতাতেই আছেন। ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় হাত বাঁধা অবস্থায় এবং মুখে সেলোটেপ লাগানো অবস্থায়।

প্রতিবেশীদের দাবি সকাল বেলায় মহিলার স্বামী বিবেক বাবু অনেকবার কলিং বেল বাজালে তার স্ত্রী দরজা না খোলায় প্রতিবেশীদের ডেকে তোলেন। প্রতিবেশীদের সঙ্গে নিয়ে ঘরে ঢোকার সময় দেখা যায় সদর দরজায় চাবি ঝুলছে। হ্যাশবোল্ট খিলে ঘুরে ঢুকতেই দেখা যায় খুশবুর দেহ ঝুলছে। তখন তার শরীরে তাপ ছিল। স্থানীয় এক চিকিৎসকের ফোন করা হলে তিনি বলেন তিনি বাইরে রয়েছেন। পুলিশে ফোন করতে। এরপর আবাসনের বাসিন্দা এক নার্সকে ডাকা হয়। তিনি এসে খুশবুর হাতের শিরা ছুয়ে বলেন তার শরীরে পালস পাওয়া যাচ্ছে না। এরপর পুলিশকে খবর দেওয়া হয় পুলিশ এসে দেহ বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। এরপর দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য আরজিকর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু করেছে পুলিশ।

পুলিশের বক্তব্য আপাতদৃষ্টিতে এই ঘটনা আত্মহত্যার মত সাজানো থাকলেও এই ঘটনায় তদন্ত প্রয়োজন রয়েছে। কারণ কয়েকটি কয়েকটি বিষয়ে সন্দেহ ও ধোঁয়াশা রয়েছে। ফলে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বেশ কয়েকজনকে জেরার প্রয়োজন রয়েছে। পাশাপাশি ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এক্ষেত্রে খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে। ঘটনাস্থল থেকে কোনো সুইসাইড নোট উদ্ধার হয়নি তবে খুশবুর মোবাইল ফোন বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। আবাসনের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Spread the love