রেডিমেড পোশাক কেনার আগে অবশ্যই এই বিষয়গুলি মাথায় রাখুন

Life24 Desk   -  

শপিং করতে ভালোবাসেন না এমন মানুষ বোধহয় খুব কমই আছেন। কোনও অনুষ্ঠান হোক বা ক্যাজুয়াল নতুন নতুন ড্রেস কিনতে মন্দ লাগে না। তার উপর যদি সঠিক কাপড়, রং এবং বাজেটের মধ্যেই হয়ে যায়, তাহলে তো আর কথাই নেই। তবে যে কোনও রেডিমেড দোকান বা বা শপিং মল থেকে কেনাকাটা করার সময় কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখা প্রয়োজন। যেন কোনওভাবেই আপনার কেনা পোশাকটি বিফলে না যায়। তাহলে আপনার টাকাটা যেমন নষ্ট হবে তেমন দোকানে গিয়ে পছন্দ করে কেনার পরিশ্রমটাই ব্যর্থ হবে।
যে সমস্ত বিষয় মাথায় রাখবেন:
নির্ভরযোগ্য দোকান: রেডিমেড কাপড় কেনার জন্য প্রথমে আপনাকে একটি নির্ভরযোগ্য দোকান খুঁজে বের করতে হবে। অন্যথায় বিক্রেতারা অনেক দাম নেবে এবং মাঝে মাঝে খারাপ মানের কাপড় দিয়ে আপনাকে ঠকাতেও চেষ্টা করবে। যথার্থ মানের কাপড় পাওয়ার জন্য আপনি ভালো মানের এবং নামকরা দোকান খুঁজতে পারেন। এক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো হয়, যদি আপনি এক দরের দোকান পছন্দ করেন।
সঠিক উপলক্ষ: ক্রেতারা সাধারণত উপলক্ষ অনুযায়ী রেডিমেড কাপড় কেনার চিন্তা করেন। কম-বেশি সকলেই প্রাত্যহিক এবং অনাড়ম্বর ব্যবহারের জন্য টেকসই এবং সাদাসিধে ডিজাইন পছন্দ করেন। আবার কোনও উপলক্ষে ব্যবহারের জন্য তাঁরা এক্সক্লুসিভ ডিজাইন পছন্দ করে থাকেন।


বাজেট উপযোগী: রেডিমেড কাপড় কেনার ক্ষেত্রে আপনার পারিবারিক অথবা ব্যক্তিগত উপার্জনের দিকে লক্ষ্য রাখা উচিত। কারও ব্যক্তিগত উপার্জন বা কোনও পরিবারের আয় বেশি হলে রেডিমেড কাপড় কেনার জন্য তাঁরা অনেক বেশি দোকান ঘুরতে পারেন। স্বাভাবিকভাবেই তাঁদের কাছে অনেক বিকল্প থাকে। আবার যাঁদের আয় সীমিত তাঁদের পছন্দও সীমিত থাকতে হয়। তাই বাজেটের মধ্যে কেনাকাটা করতে পারবেন এরকম দোকান নির্বাচন করা উচিত।
সঠিক মাপ: যদি আপনি কোনও রেডিমেড কাপড়ের দোকানে পরিবারের সবার জন্য কাপড় কিনতে যান, তাহলে আপনার পরিবারের সবার কাপড়ের সঠিক মাপ, ধরন, মান এবং স্টাইল আপনার জানা থাকা উচিত। কিন্তু আপনি যদি তাদের পোশাকের মাপ ঠিকভাবে নাই জানেন, তাহলে সবার মাপমত জামাকাপড় কিনতে পারবেন না।
মানানসই রং: কাপড়ের রং খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। তাই যখন আপনি কোন নতুন রেডিমেড কাপড় কিনতে যাবেন, তখন আপনার রংয়ের ব্যাপারে বেশ কিছু বিষয় মাথায় রাখা উচিত। এগুলো হচ্ছে কাপড়ে রংয়ের সমন্বয়, রংয়ের স্থায়িত্ব, রংয়ের মান ইত্যাদি। পাশাপাশি আপনার অবশ্যই এমন রংয়ের কাপড় বাছাই করা উচিত, যে রংয়ের কাপড় হয়তো আপনার কালেকশনে নেই।


ডিজাইন: সাধারণত যে কেউই ব্যতিক্রমধর্মী এবং সুন্দর ডিজাইনের কাপড় পছন্দ করেন। এজন্যই সকলে কাপড় কিনতে একটু বেশি সময় নিয়ে, দেখে, বেছে এবং যাচাই করে নিখুঁত এবং যথাযথ ডিজাইনের কাপড় কিনতে চান। তাই রেডিমেড কাপড়ের সৌন্দর্য মার্জিতভাব এবং মনোরম ডিজাইনের উপরেই নির্ভর করে। রেডিমেড কাপড়ের ক্ষেত্রে মানানসই রং এবং নজরকাড়া ডিজাইন একে অন্যের পরিপূরক।
জলবায়ু উপযোগী: যখন আপনি কোনও রেডিমেট কাপড় কিনতে যাবেন তখন আপনাকে অবশ্যই আবহাওয়ার দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। রেডিমেট কাপড় তারাই কিনে থাকেন, যারা কাপড় কিনে বানানোর মতো সময় করে উঠতে পারেন না। এই তাড়াহুড়োয় যেন আবহাওয়ার উপযুক্ত নয় এমন কাপড় কিনবেন না, সেদিকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখুন।


যুগোপযোগী: যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ড্রেসের ধরন পালটায়। ঘুরে ফিরে হয়তো আশি বা নব্বই দশকের স্টাইলই আবার ফিরে আসে। কিন্তু সবসময় সেটা থাকে না। নামকরা ব্র্যাণ্ডের দোকানগুলোতে সাধারণত হাল ফ্যাশনের ড্রেস পাওয়া যায়। তবুও ড্রেস নির্বাচন করার আগে একবার আশেপাশে চোখ বুলিয়ে দেখে নিন, আপনি একেবারে কোনও স্টাইলে একলা পড়ে যাচ্ছেন না তো? দেখে শুনে সঠিক পোশাক কেনাটাই শ্রেয়।
পরিস্কার করার নিয়ম: রেডিমেড ড্রেসে সাধারণত লেবেল লাগানো থাকে যাতে কাপড় ধোয়ার নিয়ম বা ওয়াশিং ইন্সট্রাকশন দেওয়া থাকে। কাপড় কেনার আগে অবশ্যই ভালোভাবে লেবেলটি পড়ে নিন। যদি কাপড় ধোয়ার নিয়ম আপনার পারিপার্শ্বিকতার সঙ্গে মিলে যায়, তাহলেই পোশাকটি কিনুন। নচেৎ, এত শখ করে কেনা কাপড়টি সঠিক নিয়মে না ধোয়ার জন্য অল্পদিনেই নষ্ট হয়ে যেতে পারে।


আরামদায়ক: যে কোনো কাপড় কেনার আগে সেটা হাতে ধরে দেখুন আরামদায়ক মনে হচ্ছে কিনা। এভাবে হাতে কাপড় ধরে খুব একটা বোঝা না গেলেও টের পাওয়া যায় অনেকটাই। তাই কাপড়টি যতই দেখতে সুন্দর লাগুক, সেটি আগে হাতে ধরে এবং কবজি থেকে কনুই পর্যন্ত কাপড়টি বিছিয়ে দেখুন কোনও অস্বস্তি লাগছে কিনা। এতে করে আপনি কাপড়ের গুণগত মান নিয়ে মোটামুটি একটা ধারণা পেয়ে যাবেন।
পোশাকটি আপনার পছন্দ তো: সবশেষে, মানসিক প্রশান্তি অনেক বড় একটি ব্যাপার। যে কাপড়টি কিনলেন সেটা পরে আপনি যদি নিজেই সন্তুষ্ট না হোন, তাহলে সেই পোশাকে আপনাকে কখনওই মানাবে না। তাই কাপড় কেনার সময় কাপড়ের মান যাচাই করার জন্য যেসব দিকে লক্ষ্য রাখবেন।
ভালো গার্মেন্টস
কাপড়ের গুণগত মান
আকর্ষণীয়ভাব
বোতাম বা হুকের অবস্থান
সেলাই
পকেট
বোতাম আটকানোর ঘর
হাতা, কলার ইত্যাদির জয়েন্ট
জিপার বা চেইন চলাচলে বাধাপ্রাপ্ত না হওয়া
জ্যাকেট, কোট এবং স্যুটের লেয়ার সমান থাকা ইত্যাদি।
রেডিমেড কাপড় কিনলে আমাদের সময় বাঁচে, ঝামেলাও কমে। কিন্তু সেই কাপড় যদি ঠিকভাবে পরাই না যায়, তাহলে পুরো টাকা ও শ্রম জলে যায়। তাই একটু সময় নিয়ে ঘুরে ঘুরে, সময় নিয়ে পছন্দমতো রেডিমেড পোশাক কিনুন।

Spread the love